Image default
বাংলাদেশ

টেকসই বেড়িবাঁধের দাবি করায় মারধর করলেন ইউপি চেয়ারম্যান

সাতক্ষীরা উপকূলের জানমালের সুরক্ষায় টেকসই বেড়িবাঁধের দাবিতে কাফনের কাপড় পরে অবস্থান কর্মসূচি পালন করা সেই তরুণ জলবায়ু কর্মীদের মারধর করেছেন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) কর্মকর্তা। শনিবার (২৯ মে) সকাল সাড়ে ৯টায় শ্যামনগরের পদ্মপুকুর ইউনিয়নের ঝাঁপার ভাঙ্গন কবলিত বেড়িবাঁধের উপর তাদের মারপিট করা হয়।

সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার পদ্মপুকুর ইউনিয়নের পাতাখালী এলাকায় ভাঙ্গনকবলিত বেড়িবাঁধের উপর শুক্রবার (২৮ মে) কাফনের কাপড় পরে অবস্থান কর্মসূচি পালন করে স্থানীয় তরুণ জলবায়ু কর্মীরা। তাদের এ অবস্থান কর্মসূচি পালনের খবর দেশের গণমাধ্যমসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হলে রাতে ফোন করে তাদেরকে হুমকি দেয়া হয়। পরদিন শনিবার (২৯ মে) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে ঝাঁপার ভাঙ্গন কবলিত বেড়িবাঁধের উপর শত শত মানুষের সামনে তাদের মারধর করেন পদ্মপুকুর ইউপি চেয়ারম্যান অ্যাড. আতাউর রহমান ও পাউবো’র সেকশন অফিসার আলমগীর হোসেন। এসময় বাঁধ নিয়ে পরবর্তীতে কোন ধরনের কর্মসূচি পালন করলে ভয়ংকর পরিণতি ভোগ করতে হবে বলেও তাদের হুমকি দেয়া হয়।

জানা যায়, সাতক্ষীরার উপকূলের লক্ষ লক্ষ জনগোষ্ঠীকে রক্ষার জন্য কাফনের কাপড় পড়ে টেকসই বাঁধ নির্মাণের দাবি জানিয়ে শুক্রবার (২৯ মে) সকালে অবস্থান কর্মসূচি পালন করে স্থানীয়রা। ম্যানগ্রোভ স্টুডেন্ট সোসাইটির আয়োজনে অনুষ্ঠিত এই অবস্থান কর্মসূচিতে ঘূর্ণিঝড় ইয়াসে ক্ষতিগ্রস্ত উপকূলীয় জনপদের বিভিন্ন প্র্রান্তের শিক্ষার্থীসহ সাধারণ মানুষ অংশ নেন।

এরপর শনিবার সকাল থেকে স্থানীয় গ্রামবাসীরা স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে ভাঙ্গন কবলিত ঝাঁপা অংশের উপকূল রক্ষা বাঁধের সংস্কার কাজ শুরু করে। এসময় কাজে নিয়োজিত গ্রামবাসীদের উৎসাহিত করতে স্বেচ্ছাসেবী ওই সংগঠনের কয়েকজন কর্মী একটি অনলাইন পোর্টালে লাইভ টেলিকাস্ট করতে শুরু করে। এক পর্যায়ে সংশ্লিষ্ট বাঁধের দায়িত্বে থাকা পাউবো’র এসও আলমগীর হোসেন দ্রুত সেখানে উপস্থিত হয়ে জলবায়ু কর্মী ও গণমাধ্যম কর্মী শাহিনসহ তার সহকর্মীদের লাইভ টেলিকাস্ট বন্ধ করতে বলেন এবং শাহিনের হাত চেপে ধরেন। এসময় স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আতাউর রহমান শাহিনকে শত শত গ্রামবাসীর সামনে মারতে শুরু করেন। তাৎক্ষণিক গ্রামবাসীরা এগিয়ে এসে শাহিনসহ তার সহকর্মীদের নিরাপদে সরিয়ে নিয়ে যান।

হামলার শিকার ম্যানগ্রোভ স্টুডেন্ট সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক শাহিন বিল্লাহ জানান, “শুক্রবার (২৮ মে) সকালে ভাঙ্গন কবলিত বাঁধে গ্র্রামবাসীকে সঙ্গে নিয়ে টেকসই ভেড়িবাঁধ নির্মাণের দাবি জানিয়ে প্রতীকী লাশ হয়ে অবস্থান কর্মসূচী পালন করি। এজন্য বিভিন্ন মিডিয়ায় গুরুত্ব সহকারে উপকূলবাসীর দাবির বিষয়টি প্রকাশ পায়। শনিবার সকালে পশ্চিম পাতাখালি এলাকায় বাঁধ মেরামতের কাজ চলছিল। সেখানে বাঁধ নির্মাণের সহযোগিতার কাজে গেলে পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ সহকারি প্রকৌশলী আলমগীর কবির ও পদ্মপুকুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আতাউর রহমান ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন। তারা বলেন, বাঁধ নির্মাণের জন্য মানববন্ধন কর্মসূচী করেছো কেন? এসব করার কি দরকার। তোমাদের নামে মামলা দেয়া হবে। ইউএনও সাহেব মামলা দিতে বলেছে। এসব বলতে বলতে আমাকে গলা ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয় ও চড় কিল ঘুষি মারতে থাকে। পরে উপস্থিত লোকজন তার হাত থেকে রক্ষা করে।

এ প্রসঙ্গে পাউবো’র সেকশন অফিসার আলমগীর হোসেন জানান, আমার সাথে শাহিন বিল্লাহ এর কোন সমস্যা হয়নি। তিনি শাহিন বিল্লাহকে মারপিটের কথা অস্বীকার করেন। মারধরের বিষয়ে জানার জন্য পদ্মপুকুরের ইউপি চেয়ারম্যান অ্যাড. আতাউর রহমানের মুঠোফোনে বার বার কল দেয়া হলে তিনি সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন। এসময় তার মুঠোফোনে ক্ষুদেবার্তা পাঠিয়েও কোনভাবে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। এদিকে, তরুণ জলবায়ু কর্মীদের মারধরের ঘটনায় সাতক্ষীরা জেলা জুড়ে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে রীতিমত নিন্দার ঝড় বইছে।

 

সূত্র ::খুলনা গেজেট

Related posts

টিকার জন্য ১ কোটির বেশি মানুষের নিবন্ধন

News Desk

বৃষ্টি উপেক্ষা করে শোলাকিয়ায় ‘৪ লাখ’ মুসল্লি

News Desk

থানা যেমন জরুরি বাচ্চাদের খেলার মাঠও জরুরি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

News Desk

Leave a Comment