free hit counter
বাংলাদেশ

‘জব সিকার নয়, সন্তানরা হবে জব ক্রিয়েটর’

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, বাংলাদেশের এক কোটির ওপরে মানুষ বিদেশে কাজ করেন। এদের প্রায় ৯৫-৯৬ ভাগ শ্রমজীবী হিসেবে কাজ করে বৈদেশিক মুদ্রা দেশে পাঠাচ্ছেন। কিন্তু বর্তমান প্রধানমন্ত্রী গত ১৩ বছরে দেশকে যেভাবে স্বল্পোন্নত দেশ থেকে ডিজিটাল দেশে রূপান্তর করেছেন, তা বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি ও মর্যাদা বাড়িয়েছে। দেশের সার্বিক উন্নয়নের কারণে বিদেশিরা এখন আর বাংলাদেশকে অবজ্ঞার চোখে নয় বরং সম্মানের চোখে দেখে।

রবিবার (২৪ জুলাই) দুপুরে সিংড়া উপজেলা মিলনায়ত সিংড়ায় ‘আইটি/হাই-টেক পার্ক’ এর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন পরবর্তী আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাই-কমিশনার বিক্রম কুমার দোরাইস্বামী।  

তিনি আরও বলেন, আমরা প্রযুক্তিনির্ভর দেশ গড়ে তুলতে চাই, যেখানে জব সিকার নয়, আমাদের সন্তানরা হবে জব ক্রিয়েটর। আর এজন্যই দেশে কোটি কোটি টাকা খরচে নির্মাণ করা হচ্ছে হাইটেক পার্ক। আগামী দুই বছরের মধ্যে ওই হাইটেক পার্কের নির্মাণ কাজ শেষ হলে সেখানে প্রশিক্ষণ নিয়ে ফ্রিল্যান্সিংয়ের মাধ্যমে তরুণ প্রজন্ম আয় করবে বৈদেশিক মুদ্রা। তারা চাকরির পেছনে ছুটবে না বরং নিজেরাই অন্যদের চাকরি দেবে। 

এ সময় ভারতীয় হাই-কমিশনার বিক্রম কুমার দোরাইস্বামী বলেন, বাংলাদেশে ভারতের অংশীদারিত্বে ১২টি হাইটেক পার্ক নির্মাণের কাজ চলছে। নির্মিতব্য হাইটেক পার্কগুলোর কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলেছে। বাংলাদেশ ভারতের অকৃত্রিম বন্ধু দাবি। এই বন্ধুত্বের সম্পর্ক আরও সদৃঢ় করতে ভবিষ্যতেও বাংলাদেশকে প্রযুক্তিখাতে সহযোগিতা দেবে ভারত। অন্যান্য খাতেও বাংলাদেশের সঙ্গে অংশীদারিত্ব বাড়ানোর বিষয়ে ভারত গুরুত্ব দিচ্ছে বলেও জানান তিনি। 

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (গ্রেড-১) ডা. বিকর্ণ কুমার ঘোষ। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে জেলা প্রশাসক শামীম আহমেদ ও পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা উপস্থিত ছিলেন।

Source link