free hit counter
বাংলাদেশ

জনগণের দিকে বিএনপির দৃষ্টি থাকে না

বিএনপি ক্ষমতা দখলকারীদের হাতে প্রতিষ্ঠিত পার্টি বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেছেন, জনগণের দিকে তাদের দৃষ্টি থাকে না। ক্ষমতার লোভটাই তাদের বড়। মানি লন্ডারিং, দুর্নীতি, জঙ্গিবাদ সৃষ্টি, বাংলা ভাই সৃষ্টি এগুলো তো তাদের কাজ ছিল। তারা তো দেশের মানুষের কল্যাণে কিছু করেনি।

বুধবার (২৭ এপ্রিল) সকালে গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে ১টি ব্রডগেজ ও ১টি মিটারগেজ কোচ সম্বলিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ভ্রাম্যমাণ রেল জাদুঘর এবং ৩০টি মিটারগেজ ও ১৬টি ব্রডগেজ লোকমোটিভের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে চাই। তবে মাঝে মাঝে বিপত্তি আসে, এটাও দুঃখজনক। যখন আমরা নতুন কোচ-লোকমোটিভ কিনলাম, তখন বিএনপি শুরু করল অগ্নি সন্ত্রাস। সব থেকে দুঃখজনক, নতুন রেলগুলো যাত্রী নিয়ে যাচ্ছে সেই রেলে আগুন দেওয়া হলো।

তিনি বলেন, বহু রেল লাইন, রেল কোচ, রেল ইঞ্জিন বিএনপি পুড়িয়ে দিয়েছিল। এটা নাকি তাদের আন্দোলন। আমি জানি না, মানুষকে পুড়িয়ে বা চলন্ত বাস-গাড়ি অথবা রেলে-লঞ্চে আগুন দিয়ে এটা কোন ধরনের আন্দোলন। এটা তো এক ধরনের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড।

সরকার প্রধান বলেন, রেলে আমাদের লোকবলের অভাব আছে। লোকবল বাড়াতে হবে। সেজন্য ইতোমধ্যে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। আমি মনে করি, এটা দ্রুত কার্যকর করা উচিত।

‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ভ্রাম্যমাণ রেল জাদুঘর’ করার জন্য রেল মন্ত্রণালয় সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধন্যবাদ জানান প্রধানমন্ত্রী। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, জাতির পিতার যে অবদান বাংলাদেশের স্বাধীনতার জন্য বা বাঙালি জাতির জন্য সেটা আমাদের দেশের মানুষ আরও ভালোভাবে জানতে পারবে। ১৯৭৫ সালে জাতির পিতাকে হত্যার পর বাংলাদেশের ইতিহাস থেকেই জাতির পিতার নামটা সম্পূর্ণ মুছে ফেলা হয়েছিল। কিন্তু  ইতিহাসকে কেউ মুছে ফেলতে পারে না এবং সেটাই আজ প্রমাণিত সত্য।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, কদিন পরে ঈদ। ঈদের আমাদের চলাচল আরও বাড়বে। আজ যে নতুন লোকমোটিভ চালু হতে যাচ্ছে, এর মাধ্যমে দেশের মানুষ আরও ভালোভাবে-সহজভাবে ঈদের উৎসবে যোগ দিতে পারবে। নিজের আপন ঘরে ফিরতে পারবে।

তিনি বলেন, রেলও আজ লাভবান প্রতিষ্ঠানে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। এখানে লোকবল আরও ভালোভাবে দিতে পারলে, লাইনগুলো সম্প্রসারিত করতে পারলে এবং নতুন নতুন যে লাইন করছি সেগুলো চালু হয়ে গেলে আমি মনে করি এটা আরও লাভবান হবে। রেলে যারা কাজ করেন অত্যন্ত আন্তরিকতার সঙ্গে কাজ করেন।

দেশের অনেকগুলো রুটে নতুন করে ট্রেন চালু হয়েছে জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, আমরা বিভিন্ন রুটে যাত্রীবাহী ট্রেন আবার চালু করতে পেরেছি। বাংলাদেশের অনেক অঞ্চল এখনো রেল লাইন দেখেনি। সেসব এলাকায় রেল লাইন স্থাপনের জন্য ইতোমধ্যে আমরা উদ্যোগ নিয়েছি। আমাদের নদী-নালা, খাল-বিলের দেশ। আমাদের মাটি অনেক নরম। এটা বিবেচনা করে কীভাবে, কতটুকু জায়গায় আমাদের রেল লাইন করা দরকার সেগুলো আমরা বিবেচনা করেছি।

তিনি বলেন, দেশের যোগাযোগ ব্যবস্থা সুন্দর করে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড আরও সচল করায় আরও উন্নত করার পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। প্রত্যেকটি ইউনিয়নে আমাদের ব্রডব্যান্ড চালু হয়ে গেছে। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ উৎক্ষেপণ করেছি। যার ফলে এখন অনলাইনে কেনাবেচা, চাকরি-বাকরি, ব্যবসা সবকিছু আমরা করতে পারছি। প্রযুক্তির মাধ্যমে যোগাযোগও আজ উন্নত হয়েছে।