free hit counter
বাংলাদেশ

‘কিচ্ছু করার নেই, বাড়ি যেতে হবে’

স্বজনদের সঙ্গে ঈদ উদযাপনে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটের ট্রেনের ছাদে করে যাতায়াত করছেন যাত্রীরা। শুক্রবার (৮ জুলাই) বিকালে নারায়ণগঞ্জ সেন্ট্রাল রেল স্টেশনে এই চিত্র দেখা যায়।

সমেজমিনে দেখা যায়, ‘ট্রেন পৌঁছাতেই যাত্রীরা হুড়োহুড়ি করে ট্রেনে উঠছেন, কে কার আগে ট্রেনে উঠবেন এ নিয়ে শুরু হয় প্রতিযোগিতা। কামড়াগুলোতে অতিরিক্ত ভিড় ভিড় থাকায় নারী-পুরুষ ও শিশুসহ অনেকে ট্রেনের ছাদে চড়ে বসেন।

যাত্রী আক্তার হোসেন বলেন, ‘একদিন পরে ঈদ, বাড়িতে যেতে হবে। ভিড় থাকার ফলে ছাদে উঠে বসেছি, কিছু করার নেই। ঈদের আগে বাড়ি যাওয়ার পথে প্রতিবছর এই ঝামেলা পোহাতে হয়।’

যাত্রী মনি আক্তার বলেন, ‘আমার স্বামী টেনে ছাদে তুলেছেন। ছাদে উঠতে খুব কষ্ট হয়েছে, হাতে ব্যথা পেয়েছি। তবু কিচ্ছু করার নেই, বাড়ি যেতে হবে। নয়তো স্বজনদের সঙ্গে ঈদ করতে পারবো না। আমার সঙ্গে ছোট মেয়ে আছে, তাকে নিয়ে একটু চিন্তা হচ্ছে।’

যাত্রী সোনিয়া দেওয়ান বলেন, ছাদে চড়ে ট্রেনে ভ্রমণ ঝুঁকিপূর্ণ হলেও কিছু করার নেই। বাড়িতে যেতে হবে। তাছাড়া আমার মতো অনেকেই ছাদে উঠে রওনা হয়েছেন। নয়তো স্বজনদের সঙ্গে ঈদ করা হবে না।  

নারায়ণগঞ্জের স্টেশন মাস্টার কামরুল ইসলাম বলেন, ‘বিকাল ৫টায় কমলাপুরের উদ্দেশ্যে ট্রেন ছেড়ে গেছে। ট্রেনে যাত্রীদের ভিড় আছে। এ কারণে অনেকে ট্রেনের ছাদে চড়ে যাচ্ছেন। ফতুল্লা স্টেশনের সবচেয়ে বেশি যাত্রী ছাদে উঠে কমলাপুর যাচ্ছে। এটা ঝুঁকিপূর্ণ হলেও কেউ আমাদের কথা শুনছেন না। 

 

Source link