free hit counter
বাংলাদেশ

কক্সবাজারে আ.লীগের সম্মেলনে সংঘর্ষ, গুলিবিদ্ধ ২

কক্সবাজারের মহেশখালীতে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সম্মেলন ও কাউন্সিলে নেতা-কর্মীদের কটূক্তি করে বক্তব্যে দেওয়াকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রার্থীসহ দুইজন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।

রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৫টার দিকে উপজেলা ধলঘাটা ইউনিয়নের সুতুরিয়া বাজারে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় গুলিবিদ্ধরা হলেন, ৫ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রার্থী মোহাম্মদ ফোরকান (৪৮) ও আবুল কাসেম (৩২)।. . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . .

স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান কামরুল হাসান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, রোববার ইউনিয়নের ৪ ও ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সম্মেলন ছিল। ওই সম্মেলনে দু-পক্ষের বক্তব্যে দেওয়ার সময় কথা-কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে আওয়ামী লীগ নেতা ও সাবেক চেয়ারম্যান আহসান উল্লাহ বাচ্চু বিভিন্ন নেতা-কর্মীদের কটূক্তি করে বক্তব্য দেন। এ সময় তৃণমূল নেতা-কর্মীরা তার বক্তব্যের প্রতিবাদ করেন। এতে হট্টগোল সৃষ্টি হয়। একপর্যায়ে বাচ্চুর অনুসারীরা সিএনজিতে থাকা অস্ত্র নিয়ে গুলিবর্ষণ করে। এতে ওই দুইজন গুরুতর আহত হন।

ইউপি চেয়ারম্যান আরও বলেন, আহতদের ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে মহেশখালী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হয়েছে। বিষয়টি জেলা, উপজেলা ও প্রশাসনকে অবহিত করা হয়েছে।

কামরুল হাসান আরও বলেন, সম্মেলনে উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ডা. নুরুল আলম ও যুগ্ম সম্পাদক ব্রজগোপাল উপস্থিত ছিলেন। তাদের সামনে গুলি চালিয়েছে বাচ্চুর লোকজন।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত আহসান উল্লাহ বাচ্চু ঘটনার বিষয়টি স্বীকার করেছেন। তবে তার লোকজন গুলি চালাননি বলে জানান তিনি। এ বিষয়ে তিনি বলেন, গুজব ও ভুয়া খবর ছড়িয়ে আমাকে থামানোর চেষ্টা চলছে।

এ বিষয়ে মহেশখালী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবু বক্কর বলেন, গুলিবিদ্ধদের হাসপাতালে আনা হচ্ছে। এ বিষয়ে থানায় তাদের অভিযোগ দিতে বলা হয়েছে। পরে অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।