free hit counter
আরও ৮০ হাজার রোহিঙ্গা যাবে ভাসানচরে
বাংলাদেশ

আরও ৮০ হাজার রোহিঙ্গা যাবে ভাসানচরে

কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলো থেকে আরও ৮০ হাজার রোহিঙ্গাকে ভাসানচরে স্থানান্তর করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। রোববার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত এবং কূটনৈতিক প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠককালে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস এ কথা বলেন।

বৈঠকে অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, ফ্রান্স, জার্মানি, জাপান, নেদারল্যান্ডস, যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত-হাইকমিশনার এবং ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও ইউএনএইচসিআরের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউসের সভাপতিত্বে বৈঠকে আরও জানানো হয়, সরকার এর আগে ১৮ হাজার রোহিঙ্গাকে ভাসানচরে স্থানান্তরিত করেছে।

এ সময় প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব বলেন, ভাসানচরের উন্নত পরিবেশ আন্তর্জাতিক অঙ্গনে প্রশংসিত হয়েছে। মিয়ানমার থেকে বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর বসবাসের উপযোগী ব্যবস্থাসহ সব মৌলিক অধিকার নিশ্চিত করতে সরকার সচেষ্ট রয়েছে।

বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব তোফাজ্জল হোসেন মিয়া এবং সংশ্লিষ্ট সচিবরা উপস্থিত ছিলেন।

২০১৭ সালে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সেনা অভিযানের মুখে প্রাণ বাঁচাতে রোহিঙ্গারা নিজ জন্মভূমি ছেড়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া শুরু করে। সে সময় ধাপে ধাপে সাত লাখের বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে প্রবেশ করে। এর আগে থেকে বিভিন্ন সময়ে বাংলাদেশে ঢোকা চার লাখের অধিক রোহিঙ্গা অবস্থান করছিলেন। সব মিলিয়ে এখন প্রায় সাড়ে ১১ লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশের বিভিন্ন আশ্রয় শিবিরে আছেন।

পরে কক্সবাজারের ক্যাম্প থেকে ১ লাখ রোহিঙ্গাকে অধিকতর নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নিতে ২ হাজার ৩১২ কোটি টাকা ব্যয় করে ভাসানচর প্রস্তুত করে বাংলাদেশ সরকার। বছর দুয়েক আগেও ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের স্থানান্তর করা সম্ভব হচ্ছিল না আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের বাধার কারণে। তবে গত বছরের ডিসেম্বরে জাতিসংঘের অনিচ্ছার পরও ১ হাজার ৬৪২ জন রোহিঙ্গাকে নিয়ে ভাসানচরে স্থানান্তর প্রক্রিয়া শুরু করে সরকার। এ পর্যন্ত সাত দফায় ১৭ হাজার ৯৭১ জন রোহিঙ্গাকে ভাসানচরে নেওয়া হয়েছে।

Related posts

পুরুষ সঙ্গীর মৃত্যুর শোকে স্ত্রী তিমির আত্মহত্যা, ধারণা মৎস্য বিজ্ঞানীর

News Desk

ঘূর্ণিঝড় ইয়াস কক্সবাজার থেকে ৬১৫ কিলোমিটার দূরে

News Desk

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে জার্মানি ও রাশিয়ার সহযোগিতা চান রাষ্ট্রপতি

News Desk
Bednet steunen 2023