free hit counter
অন্যান্য

সিলেটে নৌকার জন্য দৌড়ঝাঁপ

সিলেটে বন্যাকবলিত এলাকায় পানিবন্দিদের উদ্ধার করতে নৌকার ব্যাপক চাহিদা দেখা দিয়েছে। আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু-বান্ধবসহ পানিবন্দিদের উদ্ধারের জন্য নৌকা খুঁজছেন সাধারণ মানুষ ও স্বেচ্ছাসেবকরা। তবে দিনভর দৌড়ঝাঁপ করে এবং বাড়তি টাকা দিয়েও সহজে মিলছে না কাঙ্ক্ষিত নৌকা। ফলে নিরাপদ আশ্রয়ে থাকা স্বজনেরা হতাশার পাশাপাশি তীব্র উদ্বেগ-উৎকণ্ঠায় রয়েছেন।

এই পরিস্থিতিতে সেনাবাহিনী উপদ্রুত এলাকায় উদ্ধার তৎপরতা চালাচ্ছে।

আজ শুক্রবার বিকেলে নগরীর দর্জিবন্দের বাসিন্দা কামাল আহমদ বলেন, সকাল থেকে একটা নৌকা ভাড়া করার চেষ্টা করছি। বিশ্বনাথের কামালবাজার মাধবপুর গ্রামে আমাদের বেশ কিছু আত্মীয়-স্বজন বন্যায় গৃহবন্দি হয়ে পড়েছেন। বিদ্যুৎ ও বিশুদ্ধ খাবার পানির অভাবে তারা খুব সমস্যায় রয়েছেন। তাদের আনার জন্য সারাদিন ধরে নৌকা ভাড়ার চেষ্টা করেও পাচ্ছি না।

রাতে মোশারফ হোসেন নামে কানাডা প্রবাসী আরেকজন এই প্রতিবেদকের সঙ্গে যোগাযোগ করে নৌকার জন্য সহযোগিতা চান। তিনি জানান, সিলেট নগরীতে বসবাসকারী হবিগঞ্জের কিছু মানুষকে নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নেওয়ার জন্য তারা উদ্যোগ নিয়েছেন। তবে অনেক চেষ্টা করেও দেশে তার লোকজন কোনো নৌকা ভাড়া করতে পারছেন না।

দুপুরে সিলেট-কোম্পানীগঞ্জ সড়কের সালুটিকর বাজার এলাকায় বন্যাকবলিত এলাকা থেকে বিভিন্ন বয়সের মানুষকে নৌকায় করে আসতে দেখা গেছে। সীমান্তবর্তী কোম্পানিগঞ্জ ও গোয়াইনঘাট উপজেলা থেকে নিরাপদ আশ্রয়ের জন্য শত শত মানুষ নৌকা করে সড়কে এসে ওঠেন

কোম্পানিগঞ্জের ভোলাগঞ্জ থেকে আসা রহিম মিয়া জানান, তাদের এলাকায় বসতঘরের চাল ছুঁইছুঁই পানি। তাই নিরাপদ আশ্রয়ে যাওয়ার জন্য নৌকা ভাড়া করতে এসেছেন।

গোয়াইনঘাট থেকে আসা আকলিমা বলেন, নৌকা ভাড়ার কোন লাগাম নেই। একটা নৌকা ভাড়া ২-৩ হাজার টাকা বলছে। গরিব মানুষ। তারপরও ছোট বাচ্চাদের নিয়ে বাঁচার জন্য এসেছি।

সুনামগঞ্জের ছাতক উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে বসতঘর তলিয়ে যাওয়ায় বিপুল সংখ্যক মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। এদের মধ্যে আব্দুল মুকিত নামের একজন সকালে জানান, বাড়িতে থাকার অবস্থা নেই। পুরো বাড়ি তলিয়ে গেছে। তাই সবাইকে নিয়ে সিলেট নগরীতে আত্মীয়ের বাসায় চলে আসতে চাই। কিন্তু কোনো নৌকা পাচ্ছি না।

টানা বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে সিলেটে নদ-নদীর পানি বাড়ায় বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়েছে। এবারের বন্যাকে স্মরণকালের সবচেয়ে ভয়াবহ বন্যা বলছেন বয়োজ্যেষ্ঠরা। ইতোমধ্যে সুনামগঞ্জের সঙ্গে সারাদেশের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। সিলেটে বিভিন্ন উপজেলায় ১০ লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দি অবস্থায় রয়েছেন। শহরে গাড়ির বদলে চলছে নৌকা।