free hit counter
অন্যান্য

গানে আর স্লোগানে মুখর খুলনার সমাবেশস্থল

সমাবেশস্থলে যশোর সদরের ৪ নম্বর নোয়াপাড়া ইউনিয়নের একটি ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি সিরাজ খান প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমাদের ইউনিয়ন থেকে কম করে হলেও ৫০০ মানুষ এসেছে। খাওয়াদাওয়ার বিষয় পরে দেখা যাবে। রাতে রাস্তায় থাকব। এখনই লোকজন ভরে গেছে। বাধা না দিলে যশোর থেকেই এক হাজার গাড়ি ভরে মানুষ আসত। বাধা দিয়ে চলমান সংগ্রাম ঠেকানো যাবে না।’

শুক্রবার রাত ১০টার দিকে বিএনপির দলীয় কার্যালয়ের সামনে গিয়ে দেখা যায়, কেডি ঘোষ রোডের থানার মোড় থেকে কদমতলা স্টেশন রোড পর্যন্ত রাস্তায় পা ফেলার জায়গা নেই। বিভিন্ন জেলা থেকে আসা দলটির কর্মীরা নেতাদের নামে, দলের বিভিন্ন ইস্যুতে স্লোগান দিচ্ছেন। হেলাতলা মোড়ের স্বর্ণপট্টির পাশে বড় একটি জায়গাজুড়ে একদল কর্মী গান–বাজনা করছেন। গানের ওই আসর ঘিরেও বড় জটলা দেখা যায়। সমাবেশে আসা নেতা–কর্মীদের বেশিরভাগের কাছেই রাতে ঘুমানো বা বিশ্রামের জন্য পলিথিন বা প্লাস্টিকের বস্তা দেখা গেছে। খুলনা বিপণিবিতানের প্রধান ফটকের সামনে অনেক কর্মী বস্তা বিছিয়ে শুয়ে পড়েছেন।

Bednet steunen 2023