Image default
জানা অজানা

অধিকাংশ জলদস্যুদের একটি চোখ বন্ধ করে রাখা থাকে কেন?

ঝাঁকড়া চুল। এক চোখ কালো কাপড় দিয়ে ঢাকা। একটি পা খোঁড়া। রুক্ষ মেজাজ। ঘাড়ে একটি ঈগল পাখি। জলদস্যু বলতে আমাদের মনে এরকম একজন ব্যক্তির অবয়ব ফুটে ওঠে। হলিউডের বিখ্যাত ‘পাইরেটস্ অব দ্য ক্যারিবিয়ান’ মুভিতে জনি ডেপের দুর্দান্ত অভিনয়ের কারণে জলদস্যুদের জীবন সম্পর্কে আমরা বাঙালিরা একটু হলেও ধারণা পেয়ে গেছি। তাদের রোমাঞ্চকর জীবনযাপন সবসময়ই থ্রিলারপ্রিয় মানুষের আগ্রহের বিষয় ছিল।

বর্তমান বিশ্বে জলদস্যুদের একাধিপত্যের কথা খুব বেশি একটা শোনা যায় না। একটা সময় বিভিন্ন বৈশ্বিক ইস্যুর ভিড়ে জলদস্যুদের জাহাজদখল কিংবা অপহরণের খবর বেশ ঘটা করে আন্তর্জাতিক মিডিয়ায় স্থান করে নিত। অপহরণের পর জলদস্যুদের সাথে মুক্তিপণ নিয়ে দরকষাকষি, অতঃপর বিরাট মুক্তিপণের বিনিময়ে বন্দীদের মুক্তিপ্রদান– এসব ছিল একসময়ের নিত্যদিনের ঘটনা। সে সময় গত হয়েছে।

সমুদ্রকেন্দ্রিক কোন সিনেমা মানেই জলদস্যুর উপস্থিতি। ছোটবেলায় সিনবাদ কিংবা পাইরেটস অব ক্যারিয়ান দেখেননি এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া ‍দুষ্কর হয়ে যাবে। জলদস্যু দলের সদস্যদের মধ্যে প্রায়ই দেখা যায় অনেকের একচোখে তাপ্পি বা কাপড় বাধা থাকে।

জলদস্যুরা যে একটি চোখ বন্ধ করে রাখতেন বা তাতে চোখ পট্টিটি পরতেন, তা কোনও স্টাইলের জন্য বা অনুপস্থিত চোখের জন্য কোনও কভার হিসেবে না।

জলদস্যু
ছবি : howitworksdaily

এই পট্টিগুলি প্রথম দেখায় একটি অনুপস্থিত চোখ বা স্টাইলের জন্য পরেছে বলে মনে হতে পারে, ভিন্ন ভিন্ন জলদস্যুদের কাছে ভিন্ন ভিন্ন ব্যবহার।

কিন্তু না৷ এর কোনোটাই নয়৷

এটা ছিল কিছু বুদ্ধিমান জলদস্যুর একটি অনেক চতুর কৌশল।

সাম্প্রতিক একটি গবেষণায় বলা হয়েছে যে অন্ধকার থেকে বেরিয়ে আসার পরে মানব চোখ কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে আলোর সাথে মানিয়ে নিতে পারে। আবার আপনি যদি উজ্জ্বল আলো থেকে অন্ধকারে আসেন তবে অন্ধকারে অভ্যস্ত(মানিয়ে নিতে) হতে প্রায় ২৫ মিনিট সময় লাগে।

আপনি ঘরে বসে আলো জ্বালিয়ে যদি টিভি দেখতে থাকেন আর ঠিক সেই সময় হঠাৎ করে যদি আপনার ঘরের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে তাহলে কিছুক্ষণের জন্য আপনি ঘরে ঘুটঘুটে অন্ধকার অনুভব করবেন। অর্থাৎ অনুভূতির মাধ্যমেও আপনার ঘরে অবস্থিত বিভিন্ন বস্তুর অবস্থান আন্দাজ করতে পারবেন না। কিছুক্ষণ অন্ধকারে অতিবাহিত করার পর ঘর অন্ধকার থাকা সত্ত্বেও আপনি ঘরের বিভিন্ন বস্তুর অবস্থান আন্দাজ করতে পারবেন। অর্থাৎ আপনার চোখ এক অবস্থা থেকে আর এক অবস্থায় মানিয়ে নিতে কিছুটা সময় নেয়।

জলদস্যু
ছবি : thefactsite

জলদস্যুদের প্রতিনিয়ত যুদ্ধ – সংঘর্ষে লিপ্ত থাকতে হতো। কখনো সে যুদ্ধ জাহাজের উপরের পাটাতনে হত; কখনো জাহাজের ভিতরের ‘ডেক’ এ হত। ওপরে হলে তো কোন সমস্যা হতো না। কিন্তু জাহাজের ভিতরের ‘ডেক’ এ যদি সংঘর্ষ হত সেখানে অন্ধকার অবস্থা থাকায় যুদ্ধ করতে সমস্যা হতো। যুদ্ধকালীন এই অন্ধকার অবস্থায় নিজের চোখকে প্রস্তুত রাখার জন্য জলদস্যুরা সর্বদা তাদের এক চোখ কালো কাপড়ে ঢেকে রাখত। কালো কাপড়ে ঢাকলে অধিকাংশ আলো প্রবেশ আটকানো সম্ভব।

জলদস্যুদের বাঁচার জন্য আলো ও অন্ধকার কুপ সব জায়গাতেই বিচরণ করতে হতো! একমিনিট সে আলোতে থাকলে পরবর্তী মিনিটে তাকে অন্ধকারে যেতে হতে পারে৷ তাই কিছু কিছু চতুর জলদস্যু একটি চোখ কভার করে রাখত৷

যখন তারা অন্ধকারে যেত তখন তারা চোখের পট্টিটি পরিবর্তন করে অন্য চোখে নিত। আর অন্য চোখটি যেটি আগে থেকেই অন্ধকারে নিমজ্জিত বা ঢাকা সেটি দিয়ে খুব সহজেই তারা অন্ধকারে দেখতে পেত৷ এবং এটি তাদের অন্ধকারে দেখতে সহায়তা করেছে৷

Related posts

রিও টিনটো: যে নদীতে ডুব দিলেই হয়ে যাবেন কঙ্কাল!

News Desk

ইংরেজি গ্রামার শেখার সহজ নিয়ম

News Desk

বিদেশে উচ্চশিক্ষা: স্কলারশিপ কিভাবে পাওয়া যায়?

News Desk

Leave a Comment