free hit counter
খেলা

চার বছরে বাংলাদেশের ১৪৪ ম্যাচ

আগামী চার বছরের (২০২৩-২০২৭) জন্য এফটিপি (ফিউচার টু্যর প্রোগ্রাম) তৈরি করেছে আইসিসি। যদিও এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো কিছুই প্রকাশ করেনি তারা। তবে ক্রিকেট ওয়েবসাইট ক্রিকইনফোর সূত্র মতে, নতুন এফটিপিতে জ্যাকপট লেগেছে বাংলাদেশের। আগামী চার বছরে তিন ফরম্যাট মিলিয়ে মোট ১৪৪টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলবে টাইগাররা। এই চক্রে বাংলাদেশের চেয়ে বেশি ম্যাচ খেলবে কেবল ওয়েস্ট ইন্ডিজ (১৪৬)।

চলমান এফটিপিতে মোট ১৫৭টি ম্যাচ পেয়েছিল বাংলাদেশ। তবে সেই চক্রটি ছিল পাঁচ বছরের (২০১৮-২০২৩)। যা শেষ হবে আগামী বছরের শুরুতে। এবারের চক্রে ১৪৪ ম্যাচের মধ্যে বাংলাদেশ টি-২০ খেলবে ৫১টি। প্রিয় ফরম্যাট ওয়ানডেতে খেলবে ৫৯টি ম্যাচ। শুধু তা-ই নয় এই ফরম্যাটে আগামী চার বছরে যেকোনো দেশের চেয়ে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলবে টাইগাররা। ৫৮টি ম্যাচ পেয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে আছে শ্রীলঙ্কা।



তবে বাংলাদেশের জন্য যে চমকটা অপেক্ষা করছে সেটা লাল বলের ক্রিকেটে। গত বছর করোনা ভাইরাস ও অন্যান্য কারণে অনেক ম্যাচ না খেলতে পারলেও এবার আগামী চার বছরে চতুর্থ সর্বোচ্চ ৩৪টি ম্যাচ খেলবে টাইগাররা। তবে চমকটা হচ্ছে পাকিস্তান, নিউজিল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা, ওয়েস্ট ইন্ডিজ কেউই বাংলাদেশের চেয়ে বেশি ম্যাচ পায়নি। বাংলাদেশের আগে রয়েছে— ভারত (৩৮), অস্ট্রেলিয়া (৪১), ইংল্যান্ড (৪২)।

আজ থেকে ৮-১০ বছর আগে আইসিসির কাছে আমাদের যে চাওয়াটা ছিল, আমরা বেশি ম্যাচ খেলতে চাই। তারই প্রতিফলন ক্রমান্বয়ে দেখা যাচ্ছে


নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন

নতুন এফটিপিতে দুটি বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ রয়েছে। প্রথম চ্যাম্পিয়নশিপে (২০২৩-২০২৫ সাল) বাংলাদেশ ঘরের মাঠে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলবে নিউজিল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা ও শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। দেশের বাইরে সিরিজ খেলতে যাবে ভারত, পাকিস্তান ও ওয়েস্ট ইন্ডিজে। তাছাড়া টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের বাইরে আফগানিস্তান, আয়ারল্যান্ড ও জিম্বাবুয়ের বিপক্ষেও সিরিজ খেলবে টাইগাররা।

চলমান এফটিপিতে টেস্টে উন্নতির গ্রাফটা খুব একটা উঁচুতে নিতে পারেনি বাংলাদেশ। তবুও আগামী এফটিপিতে প্রচুর ম্যাচ পেয়েছে টাইগাররা। তা উন্নতির পথে বড় প্রভাব ফেলবে বলে মনে করেন বিসিবি প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরী সুজন, ‘আজ থেকে ৮-১০ বছর আগে আইসিসির কাছে আমাদের যে চাওয়াটা ছিল, আমরা বেশি ম্যাচ খেলতে চাই। তারই প্রতিফলন ক্রমান্বয়ে দেখা যাচ্ছে। লঙ্গার ভার্সন বলেন বা টেস্ট ম্যাচ বলেন আমার তো খেলতে হবে তাই না। তা ডমেস্টিকে খেলি বা আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলি। খেলার সুযোগ বাড়াটা অবশ্যই আমাদের জন্য ইতিবাচক দিক এবং উন্নতিতে হয়তো বড় প্রভাব ফেলবে।’

আগামী ২৬ ও ২৭ জুলাই বার্মিংহামে বার্ষিক সভার পর এফটিপি প্রকাশ করবে আইসিসি। আন্তর্জাতিক সূচির নিশ্চয়তা পাওয়ার পর ঘরোয়া ক্রিকেটের সূচি নিয়ে কাজ শুরু করবে বিসিবি। যদিও বিপিএলের সূচি অনেকটাই নিশ্চিত। সুজন বলেন, ‘আন্তর্জাতিক সূচিটা হয়ে গেলে এরপর আমাদের লক্ষ্য থাকবে ‘এ’ টিমের সূচিটা করা। পরবর্তীতে এগুলো নিশ্চিত হয়ে গেলে আমরা ঘরোয়া ক্রিকেটের সূচিটাও আগামী চার বছরের জন্য করে ফেলতে পারব।’

Source link