free hit counter
খেলা

আর্জেন্টিনাকে সাপোর্ট করা সব সময়ই রিস্ক: মাশরাফি

বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি মুর্তজা বড় হয়েছেন ডিয়েগো ম্যারাডোনার খেলা দেখে। আর্জেন্টাইন ফুটবল-ঈশ্বরের পায়ের জাদু তার মন জয় করে নিয়েছিল ছেলেবেলায়। সেই শুরু। এখনও আকাশি-নীল জার্সিধারীদের হৃদয়ে লালন করে যাচ্ছেন বাংলাদেশের সাবেক অধিনায়ক। মঙ্গলবার সৌদি আরবের বিপক্ষে ২-১ ব্যবধানে হার দিয়ে শুরু হয়েছে আর্জেন্টিনার ২০২২ বিশ্বকাপ মিশন। শুরুর হোঁচটে হৃদয়ে রক্তক্ষরণ আর্জেন্টাইন সমর্থকদের। মাশরাফিও ব্যথিত। তবু আশা করছেন ঘুরে দাঁড়াবে তার প্রিয় দল।

টানা ৩৬ ম্যাচে অপরাজিত থেকে বিশ্বকাপের মঞ্চে খেলতে নেমেছিল আর্জেন্টিনা। মেসির সম্ভাব্য শেষ বিশ্বকাপে স্মরণীয় শুরুর প্রত্যাশায় ছিল আলবিসেলেস্তেরা। কিন্তু অপরাজিত দলটিকে মাটিতে নামিয়ে আনলো সৌদি আরব। গত ৩৬ বছর ধরেই আর্জেন্টিনাকে নিয়ে আশায় বুক বাঁধে তার সমর্থকরা। কিন্তু বিশ্বকাপ শুরু হতেই সেই একই গল্প। প্রথম ম্যাচ হারের পর হতাশায় ভেঙে পড়েছেন আর্জেন্টিনার ভক্তরা।

মাশরাফি মনে করেন, আর্জেন্টিনাকে সাপোর্ট করা বরাবরই রিস্কের, ‘আর্জেন্টিনা সাপোর্ট করা সবসময় রিস্ক, কিন্তু কিছুই করার নাই। এই দলটাকেই সাপোর্ট করে যেতে হবে। আবার হয়তো গ্রুপ স্টেজ থেকেই বিদায় নিতে হবে, এটা নতুন কিছু না। তবে ওদের ডিফেন্স আরও একবার এক্সপোজ হলো। খেলায় অঘটন ঘটে।’

মাশরাফির মতে, সৌদির সঙ্গে ম্যাচে সম্ভাব্য সবচেয়ে খারাপ ফলাফল হতে পারতো ড্র। ২-১ ব্যবধানে হারটা মেনে নেওয়ার মতো নয়। মাশরাফির হতাশা শেষ ৫০ মিনিটেও গোল শোধ করতে না পারা, ‘এটা সত্য তবে সৌদির সাথে ড্র-এর থেকে খারাপ আশা করা যায় না। আর আর্জেন্টিনা কখনও অন্যদের মতো কামব্যাক করতে পারে না তা আরও একবার প্রমাণিত। ৫০ মিনিট হাতে পেয়েও গোল শোধ করতে পারে না, যেখানে অন্য দল এই অবস্থায় থাকলে ম্যাচ জিততো বা ড্র করতো।’

প্রথম ম্যাচ হারের পরও মাশরাফি দলের সঙ্গেই থাকার ঘোষণা দিয়েছেন, ‘চাপে আর্জেন্টিনা কখনোই ভালো দল না। আর ঠিক এ কারণেই ওদের খেলা নিয়ে কখনোই বড় কিছু আশা করিও না। ব্রেনের ভেতর ঢুকে গেছে দলটা, তাই যা কিছুই হোক দলটার সাথেই আছি। শুভকামনা পরের ম্যাচের জন্য।’

Bednet steunen 2023