free hit counter
৩ হাজার বছরের পুরোনো সোনার শহরের সন্ধান!
আন্তর্জাতিক

৩ হাজার বছরের পুরোনো সোনার শহরের সন্ধান!

খ্রিষ্টপূর্ব ৩১৫০ অব্দে উত্তর আফ্রিকার পূর্বাঞ্চলে নীলনদের তীরে গড়ে উঠেছিল প্রাচীন মিশরীয় সভ্যতা। নদের নিম্নাঞ্চলে গড়ে ওঠা এই সভ্যতা জ্ঞান-বিজ্ঞান, স্থাপত্য ও জ্যোতির্বিদ্যায় এতোটাই এগিয়ে গিয়েছিল যা এখনো গবেষণার বিষয়। প্রায় ৩ হাজার বছর শাসনকালের প্রাচীন মিশরীয় সভ্যতা নিয়ে রয়েছে নানা রোমহর্ষক কাহিনিও। কৌতূহলের জাল বুনে চলেছে এই দেশটি।

মিশরে রহস্য জালের যেমন কোনো শেষ নেই, তেমনি প্রত্নতাত্ত্বিকরাও নাছোড়বান্দা। মিশরের পিরামিড থেকে মমি, আরো না জানা রহস্যের সন্ধান চালিয়ে যাচ্ছেন। এবার তারা খুঁজে পেলেন মাটির নিচে চাপা পড়ে যাওয়া ৩ হাজার বছর পুরোনো এক সোনার শহর। এই শহর নাকি সেই সময়ে বিশ্বের সবচেয়ে বড় শহরের তকমা পেয়েছিলো। কায়রো শহর থেকে কিছুটা দক্ষিণে বালির নিচে পাওয়া গিয়েছে এর হদিশ।

তুতেনখামেনের সমাধি আবিষ্কারের পর মিশরের ইতিহাসচর্চায় সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ আবিষ্কার এই শহর; যা প্রায় অবিকৃত অবস্থাতেই উদ্ধার হয়েছে। মিশরীয় সভ্যতার পাশাপাশি সেই সময়ে আরো অনেক সভ্যতা গজিয়ে উঠতে থাকায় ফ্যারাওরা তাদের শ্রেষ্ঠত্ব টিকিয়ে রাখার প্রচেষ্টায় ফ্যারাও তৃতীয় আমেনহোতেফ এমন এক শহর তৈরি করেছিলেন, যা আকারে এবং জৌলুসে সেই সময়ের সমস্ত শহরকেই হার মানানোর দাবি রাখে। একটি প্রত্নতাত্ত্বিক দল লুক্সর শহরের দক্ষিণে একটি ৩ হাজার বছরের প্রাচীন শহর উদ্ধার করেছে।

পুরো শহরের পরিকল্পনা, নিকাশি ব্যবস্থা, গঠনকাঠামো দেখে বেশ অবাক হয়েছেন গবেষকরা। শহরের তিন ভাগের মধ্যে একটি ছিল প্রশাসনিক অঞ্চল। অন্য একটি ছিল দাস ও শ্রমিক শ্রেণির মানুষদের জন্যে। আর তৃতীয় অঞ্চলটি জুড়ে ছিল কারখানা ও কৃষিজমি। এছাড়াও একটি বিচ্ছিন্ন অঞ্চল মাংস সংরক্ষণের কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহৃত হতো। প্রত্নতাত্ত্বিকরা খুঁজে পেয়েছেন বেশ কিছু খাবার পাত্র ও অন্যান্য মৃৎসামগ্রী। প্রতিটি পাত্রে ভিন্ন খাবার দেওয়া হত সেটাই তাদের ধারণা। সেইসব খাদ্যাভ্যাস সম্বন্ধে আরো বিস্তারিত জানার জন্য গবেষণা চলছে।

Related posts

চীনের টিকার তৃতীয় ডোজের প্রয়োজন হতে পারে, দাবি মিশরীয় গবেষকের

News Desk

সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার পথে তুরস্ক-মিসর

News Desk

মিশরের রাজপথে ১৮ জন রাজা ও ৪ জন রানির মমির যাত্রা

News Desk