free hit counter
বিনোদন

শাহরুখ নিজেই বিনে পয়সায় মাধবনের ছবিতে অভিনয়ে আগ্রহী হন

আসছে ১ জুলাই মুক্তি পেতে যাচ্ছে অভিনেতা মাধবনের পরিচালিত ছবি ‘রকেট্রি : দ্য নাম্বি ইফেক্ট’। আর এই ছবিটির মাধ্যমেই তিনি নির্মাতা হিসেবে অভিষিক্ত হচ্ছেন।  এই ছবিটিতে প্রধান ভূমিকায় অভিনয় করছেন অভিনেতা নিজেই। সম্প্রতি অভিনেতা এই ছবি নিয়ে কয়েকটি অজানা কথা জানালেন।

ছবিটি করতে গিয়ে বলিউড অভিনেতাদের অনেক সহায়তা পেয়েছেন। সে কথাই বলেছেন একটি গণমাধ্যমের সাক্ষাৎকারে।

 

দক্ষিণী অভিনেতা সূর্য হোক বা খান সাহেব (শাহরুখ), তাঁরা কেউই ছবির জন্য কোনো রকমের পারিশ্রমিক নেননি। এমনকি এই ছবিতে অভিনয়ের জন্য তাঁরা নিজেদের জন্য পোশাক এবং সহকারীর জন্যও কিছুই পারিশ্রমিক চাননি বলে জানান মাধবন।

মাধবন জানান, সূর্য, তাঁর নিজের টাকায় ক্রুদের সঙ্গে মুম্বাইয়ে শ্যুটিং করতে গিয়েছিলেন।   ফ্লাইটের জন্য বা সংলাপ লেখকের জন্যও চার্জ নেননি। কারণ তাঁর সংলাপগুলো তামিল ভাষায় অনুবাদ করেছিলেন। আর সেই লেখকেরও কোনো চার্জ নেননি।

আর এই ছবির হিন্দি সংস্করণে অভিনেতা শাহরুখ খান একটি চ্যাট শোতে হোস্টের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন। শাহরুখ এই ছবিতে কিভাবে যুক্ত হলেন সেই সম্পর্কে মাধবন বলেন, ‘আমি শাহরুখ খান সাহেবকে রকেট্রি ছবি সম্পর্কে কিছু কথা বলেছিলাম। তাঁর সঙ্গে যখন আমি জিরো সিনেমায় কাজ করি, তখন তিনি স্পষ্টভাবে মনে রেখেছিলেন। ’

তিনি বলেন, ‘‘শাহরুখ জন্মদিনের পার্টির একসময় আমাকে ডেকে ছবি সম্পর্কে জিজ্ঞেস করেছিলেন এবং তখনই ছবিটিতে অংশ নেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, ‘আমি এই ছবিতে যেকোনো পটভূমি এবং যেকোনো চরিত্রে অভিনয় করতে প্রস্তুত। তাই আমাকে এই ছবির একটি অংশ করো। ’ তখন আমি ভেবেছিলাম তিনি মজা করছেন। দুই দিন পরে আমার ম্যানেজারের কাছ থেকে একটি টেক্সট পেলাম, ‘খান সাহেব শুটিংয়ের তারিখ সম্পর্কে জিজ্ঞেস করছেন। ’ এভাবেই তিনি আমাদের চলচ্চিত্রের একটি অংশ হয়ে গেলেন। ”

‘রকেট্রি : দ্য নাম্বি ইফেক্ট’ মূলত নামবি নারায়ণের জীবনের ওপর ভিত্তি করে তৈরি, যিনি ISRO (ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা)-র প্রাক্তন বিজ্ঞানী এবং মহাকাশ প্রকৌশলী ছিলেন। চলচ্চিত্রটি রচনা, প্রযোজনা ও পরিচালনা করেছেন মাধবন এবং তিনিই এই ছবিতে প্রধান ভূমিকায় অভিনয় করছেন।

গল্পটি প্রিন্সটন ইউনিভার্সিটিতে পড়ার সময় একজন স্নাতক ছাত্র হিসেবে নারায়ণের জীবনের ওপর বিস্তৃত, একজন বিজ্ঞানী হিসেবে তাঁর কাজ এবং তাঁর ওপর মিথ্যা গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগ আনা―সব কিছুই ছবিটিতে দেখা যাবে।